সেরাসে আদি এবং আরও দু’টি

উ ॥ ৎ ॥ স ॥ র্গ

 

আমার প্রিয় মানুষ

ড. মোহাম্মদ হাননানকে

 

 

সেরাসে আদি

 
তুই কি জানিস এরিক ফন দানিকেন নামের এক ভদ্রলোক দাবি করেন, শুধু দাবি না প্রমাণ করে দেখিয়েছেন, ভিন গ্রহের কোন প্রাণী আমাদের এই গ্যালাক্সিতে এসেছিল। সাব্বির কাকা অন্য মনস্ক হয়ে বললেন। 
 
সত্যি! অন্যগ্রহের মানুষ? বিকেলে ছাদে বসে আছি। খুব উত্তেজিত হয়ে কাকাকে জিজ্ঞেস করলাম।
 
হ্যাঁ। কাকা মনোযোগ দিয়ে চিনা বাদামের খোসা ছাড়াচ্ছেন। 
 
এলিয়েনদের সঙ্গে কি তাঁর পরিচয় ছিল? বাদাম বাছা ভুলে কাকাকে চাপাচাপি করতে থাকি।
 
হা। হা। হা। এত সোজা হলে তো কাজই হয়েছিল বাপধন! তাঁকে এ জন্য দুনিয়া চষে বেড়াতে হয়েছে। সাব্বির কাকা আমার কথা শুনে হাসতে থাকেন।
 
ওরেব্বাস! তিনি দুনিয়া ঘুরে এলিয়েন খুঁজে বের করলেন? সিরিয়াস হয়ে কাকাকে আমি জিজ্ঞেস করলাম। আমি এলিয়েনের খুব ভক্ত।
 
বোকার মতো কথা বলছিস কেন? আচ্ছা তোকে বুঝিয়ে বলি। যেমন ইস্টার্র দ্বীপে গিয়ে তিনি প্রাচীন পরিত্যক্ত গুহার সন্ধান পেলেন।
 
গুহা! কাকার কথায় বাধা দিলাম। আদিমকালে সেখানে মানুষ থাকত? 
 
পুরোটা বলতে দে। সাব্বির কাকা হেসে আবার বলতে শুরু করলেন। 
 
ভদ্রলোক ইস্টার্র দ্বীপে ত্রিশ-চল্লিশ হাজার বছর আগের পরিত্যক্ত এক গুহার সন্ধান বের করলেন। খোসা ছাড়ানো চিনাবাদাম মুখে নেয়ার জন্য কাকা কথা থামালেন। সুযোগটা আমি কাজে লাগালাম।
 
ত্রিশ-চল্লিশ হাজার বছর আগে ওখানে মানুষ থাকত?
 
মানুষ! বলতে পারিস আমাদের পূর্ব পুুরুষরা বাস করত। সাব্বির কাকা মুচকি হাসেন।
 
জঙ্গলি! বন মানুষ ! ওরা কাঁচা গোসত খেত? হড়বড় করে বললাম।
 
তা বলতে পারিস। তবে রাতে ওরা গুহা থেকে বের হতো না। তাহলে হিংস্র পশুর খাদ্য হয়ে যাওয়ার চান্স ছিল।
 
সে কি কথা? সারা রাত গুহায় বন্দী থাকতে হতো?
 
তোকে একটা মজার কথা বলি। রাতের বেলা অর্থাৎ অন্ধকার হলে যে মানুষ ভীত হয় এর কারণ সর্ম্পকে এরিক ফন দানিকেনের একটা কঠিন যুক্তি আছে।
 
কি। ভুতের ভয়? উত্তেজিত হয়ে গেলাম। 
 
কাকা আমার দিকে তাকিয়ে ভুরু নাচিয়ে হেসে বললেন, তুই চিনা বাদাম চাবা আর শুনে যা।
 
ত্রিশ-চল্লিশ হাজার বছর আগে মানুষ যেখানে খাবার খুঁজতো তার আশেপাশের গুহায় থাকত। দিনের বেলা সবাই একসঙ্গে জোট হয়ে শিকারে বের হতো। সূর্য থাকতে থাকতেই শিকারের কাজ সেরে ফেলত। কেন না রাত হলেই বিপদ। রাতে গুহা থেকে বের হলেই হিংস্র পশুর আক্রমণে মারা পড়ত। অন্ধকারে মানুষ আশেপাশে কিছু দেখতে পেত না। আর দানিকেন এ ঘটনা ব্যাখ্যা করে বললেন, প্রাচীনকালের সেই অন্ধকার ভীতি এখনও আধুনিক মানুষ তার শরীরের কোষে বয়ে বেড়াচ্ছে। কাকা আমাকে প্রশ্ন করার সুযোগ করে দিতে থামলেন। হেসে ভুরু নাচালেন।
 
কিন্তু তুমি তো গুহার কথা বললে না। উনি গুহায় কি পেলেন? এলিয়েন? ভীষণ উত্তেজনা হচ্ছে।
 
হা। হা। হা। এলিয়েন! তা এক প্রকার বলতে পারিস। 
 
কয়জন এলিয়েন পেলেন? আমি না বলে পারলাম না। শরীরের লোম দাঁড়িয়ে গেছে। 
 
একটু শান্ত হও বাবা। তুই তো খ্যাপার মতো প্রশ্ন করছিস। না। গুহায় এলিয়েন ছিল না। তবে তিনি  কিছু প্রাচীন চিত্র বা ছবি খুঁজে পেলেন।
 
ছবি আঁকার রং পেল কোথা থেকে? ফট করে আমি প্রশ্ন করলাম। 
 
সাব্বির কাকার কথায় বাধা পড়ল। পিঠে একটা হালকা চাপড় দিয়ে বললেন, সাব্বাস! মাথা খাটিয়েছিস। কঠিন প্রশ্ন! হ্যাঁ। পাথরের গায়ে রং দিয়ে আঁকা। তবে রং নকল না। দানিকেনের ধারণা সেই সময় তারা ফুলের পাপড়ির কষ থেকে এই রং বানায়। 
 
গুহায় কিন্তু ছবি পেল। এলিয়েন পেল না। কিছুটা হতাশ হয়ে বললাম।
 
হে। হে। হে। সাব্বির কাকা আমাকে হতাশ হতে দেখে হেসে বললেন, পুরোটা শুন চাঁদু!
 
তুমি আমাকে চাঁদু বললে? অভিমান নিয়ে কাকাকে বললাম। 
 

Specifications

  • বইয়ের লেখক: মাহাবুব-উর-রসিদ
  • আই.এস.বি.এন: ৯৮৪৭০২১৪০১১০৯
  • স্টকের অবস্থা: স্টক আছে
  • ছাড়কৃত মূল্য: ৭৫.০০ টাকা
  • বইয়ের মূল্য: ১০০.০০ টাকা
  • সংস্করণ: প্রথম প্রকাশ
  • পৃষ্ঠা: ৭৪
  • প্রকাশক: হাক্কানী পাবলিশার্স
  • মুদ্রণ / ছাপা: টেকনো বিডি ইন্টারন্যাশনাল
  • বাঁধাই: Hardback
  • বছর / সন: ফেব্রুয়ারি ২০১৫

Share this Book

Sky Poker review bettingy.com/sky-poker read at bettingy.com